You are currently viewing জাপানের নিরীহ প্রকৃতির সুন্দর প্রানী

জাপানের নিরীহ প্রকৃতির সুন্দর প্রানী

সুন্দর প্রানী প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের দেশেই পাওয়া যাবে, এটিই স্বাভাবিক। জাপান পৃথিবীর অন্যতম  উন্নত দেশগুলোর  একটি। বিভিন্ন দিক থেকে জাপান বিশ্বের বাকি সকল দেশ থেকে অনেক এগিয়ে। এ ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে জাপানি টেকনোলজি যা বিশ্বব্যাপী মানুষের নিকট কোয়ালিটি সম্পন্ন এবং হিসেবে বিবেচত। জাপানিদের সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য আদিকাল থেকে বর্তমান পর্যন্ত ধরে রাখার কারণে সারাবিশ্বের  চেয়ে এরা আলাদা।  জাপানের চতুর্দিক সমুদ্র দ্বারা বেষ্টিত। কিছুটা দূরে দক্ষিণ কোরিয়া অবস্থিত।

সমুদ্রবেষ্টিত হওয়ায় জাপানের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য অনেক বেশি আকর্ষণীয় এবং এই পরিবেশে বিভিন্ন প্রজাতির প্রাণী বিভিন্ন ঋতুতে বসবাস করে থাকে। এর চারপাশে সমুদ্রে প্রচুর পরিমাণ সামুদ্রিক প্রাণী এবং সমুদ্রতীরে সুন্দর সুন্দর প্রজাতির মাছ দেখতে পাওয়া যায়। আজকে আমরা জাপানের এমনসব প্রাণীদের সম্পর্কে জানব ওই অঞ্চলে শুধুমাত্র পাওয়া যায় এবং মানুষের নিকট অনেক প্রিয়।

স্নো মানকিঃ

জাপানে অনেক বেশি পাহাড় থাকায় জায়গাগুলো মানুষদের জন্য বিনোদন কেন্দ্রে পরিণত হয়েছে। এরমধ্যে উল্লেখযোগ্য পাহাড় হচ্ছে মাউন্ট ফুজি। এসব নিদর্শন স্থানগুলোতে বিভিন্ন ধরনের গড়ে  রিসোর্ট উঠেছে। এসব তুষার যুক্ত এলাকায় এই প্রজাতির বানর দেখতে পাওয়া যায়। এজন্য এদের  জাপানিজ   ম্যাকাও বলা হয়।  ট্যুরিস্টরা এদের ছবি তুললে সহজে বিরক্ত হয়না। বরং স্বাভাবিকভাবে চলাফেরা করা পছন্দ করে।

সুন্দর প্রানী
ছবিঃ জাপানি বানর

সিকা হরিণঃ

এরা জাপানে বসবাস করলেও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় এদের দেখতে পাওয়া যায়। জাপানিরা এদের নিউঝিকা  জাপানি হরিণ বলে  অভিহিত করেন। এই প্রজাতির হরিণদের শরিলে সব সব যুক্ত সাদাত গোলাকার দাগ রয়েছে। যদিও চায়নাতে এক বিশেষ প্রকৃতির ওষুধ তৈরিতে হরিণের মখমলের সিং ব্যবহার  হয় কিন্তু জাপানে এই সংস্কৃতি প্রচলিত হয়নি। এরা শহরের আশেপাশে জঙ্গলে দেখতে পাওয়া যায়। কিন্তু সংখ্যা অনেক কম প্রজাতির বর্তমানে রয়েছে। অত্যান্ত শান্ত প্রকৃতির হয় মাঝে মাঝে এরা রাস্তায় চলে আসে।

sika deer
ছবিঃ সুন্দর প্রানী সিকা হরিন

ইজোনাকিঃ

জাপানের একটি ঐতিহাসিক দ্বীপের নাম ইজো দ্বিপ। এই নামে এক প্রকার প্রাণী দেখতে পাওয়া যায় যা  বৈশিষ্ট্যের দিক থেকে খরগোশের সাথে মিল রয়েছে। কিন্তু এটি খরগোশ নয় বরং লীগোমরফ নামক এক প্রজাতির প্রাণী। এদের আঞ্চলিকভাবে অনেকে  পিকা বলে থাকে। মজার বিষয় হলো “পোকেমন” বা  “পিকাচু”  নামের যেসব কার্টুন আমরা দেখি  এই প্রাণী থেকেই  কার্টুনের কনসেপ্ট  পাওয়া যায়।

ezonaki usagi
ছবিঃ সুন্দর প্রানী

সুন্দর প্রানীঃ

এই প্রজাতির পাখি সারাবিশ্বব্যাপী বিভিন্ন দেশে দেখতে পাওয়া যায়।  কিন্তু স্থান ও জলবায়ুর উপর ভিত্তি করে এদের বৈশিষ্ট্য শরীরের রং বিভিন্ন কিছু পরিবর্তিত হতে থাকে। তবে জাপানে যে পাখি দেখতে পাওয়া যায় তা অত্যন্ত ছোট প্রকৃতির কিন্তু সম্পূর্ণ শরীর তুষারের ন্যায় সাদা।এদের কিছু প্রজাতির শরীরে কালো রংয়ের দেখতে পাওয়া যায়। আবার অনেকের মাথার উপর কালো দাগ থাকে। এদের নাম “সিমা ইনাগা”। সুন্দর প্রানীদের সম্পর্কে জানতে ক্লিক করুন

beautiful birds
ছবিঃ সিমা ইনাগা পাখি

জাপানি পেঁচাঃ

 পেঁচাকে জাপানি ভাষায় “ফুকুরো”  বলা হয়। এছাড়াও জাপানির পেঁচাকে ইংরেজিতে “ইউরাল আউল” বলে। এরা জাপানের হোকাইডো দ্বীপ ছাড়াও রাশিয়া ও স্ক্যান্ডেনেভিয়া অঞ্চলে দেখতে পাওয়া যায় । এরাও  বরফ অঞ্চলে বসবাস করে এবং মানুষের জন্য তেমন ক্ষতিকারক নয়।

top 10 animals
ছবিঃ জাপানি প্যাঁচা

পরিশেষে,  জাপানের অনেক নিরীহ সুন্দর প্রানীদের সম্পর্কে জানা গেল। বেশিভাগ প্রাণী আমাদের দেশের সাথে  আংশিক বা সম্পূর্ণ মিল রয়েছে। শুধুমাত্র আবহাওয়া জলবায়ু এবং স্থান পরিবর্তন হওয়ার জন্য কিছু কিছু বৈশিষ্ট্যের  পার্থক্য লক্ষ্য করা যায়।  এরকম প্রাণীদের সম্পর্কে আরো জানতে আমাদের সাথেই থাকুন এবং আপনাদের মতামত কমেন্ট বক্সে মাধ্যমে আমাদের সাথে শেয়ার করুন। 

Facebook Comments

YappoBD

YappoBD-হলো poshupakhi.com এর একমাত্র স্বত্তাধীকারি। এই ওয়েবসাইটের সকল প্রকার কন্টেন্ট ইয়াপ্পোবিডি কর্তৃপক্ষ দ্বারা লিখিত, পরিমার্জিত এবং এটি ইয়াপ্পোবিডি এর অঙ্গসংস্থান।