You are currently viewing অতিথি পাখি শীতের আগমনী বার্তা দেয়
  • Post category:পাখি
  • Reading time:1 mins read

অতিথি পাখি শীতের আগমনী বার্তা দেয়

মাইগ্রেশন শব্দের অর্থ দেশান্তরে গমন। শাব্দিক অর্থে এমন হলেও প্রকৃত পক্ষে পাখি গুলো এক জায়গা থেকে অন্যত্র গমন করাকে মাইগ্রেশন বলে থাকে। অথিতি পাখির ছবি গুলো সম্পর্কে আমাদের অনেক কিছুই অজানা আছে, তা জানতে হবে। মানুষ এক জায়গা থেকে অন্যত্র গমন করলে তাকে মুসাফির বলে হয় তেমনি ভাবে পাখিরা এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় গমন করলে তাকে মাইগ্রেশন বলা হয়। মাইগ্রেট করা পাখি আমাদের দেশেও আসে। এই সব পাখিকেই তখন অতিথি পাখি বলা হয়। যে সব পাখিরা এমন মাইগ্রেট করে থাকে তারা সারা বছরই এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় পরিভ্রমন করে। এতে এরা যেমন দীর্ঘ দূরত্ব পাড়ি দেয় তেমনি ভাবে এরা বছরের একটি নির্দিষ্ট সময় নির্দিষ্ট দেশে অতিক্রম করে বা কিছু সময়ের জন্য যাত্রা বিরতি নেয়। সব পাখি আবার একই দিক বরাবর পরিভ্রমন করে না বিভিন্ন পাখি তাদের দরকার অনুযায়ী নির্দিষ্ট দিকে মাইগ্রেশন করে। যাত্রা পথে কয়েকটি জায়গায় বিরতি নেয়।

এসব মাইগ্রেশন করা পাখি আমাদের দেশেও যাত্রা বিরতি নেয়। দীর্ঘ পথ  পাড়ি দিয়ে আমাদের দেশ পর্যন্ত আসতে শীতকাল চলে এসে যায়। এজন্যই আমরা শীতকালে অতিথি পাখিদের দেখতে পাই। মাইগ্রেশন করা পাখি কিংবা অতিথি পাখি কখনই আমাদের দেশে নির্দিষ্ট জায়গায় থাকে না। বসন্তের আগমনের সাথে যেমন গাছে নতুন পাতার অবির্ভাব হয় তেমনিভাবে এই শীতকালীন অতিথি পাখি এর বিদায় এর সময় এসে যায় এবং তারা নতুন গন্তব্যের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করে। শীতকালীন অতিথি পাখি গুলোকে আমরা আমাদের চারপাশে শীতের সকালে শীতের পিঠাপুলি খেতে খেতে দেখা মিলে। তবে এর সংখ্যা খুবই কম হয়। অনেক অতিথি পাখি একসাথে দর্শন করতে চাইলে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় এর ক্যাম্পাসে দেখা মিলবে। এখানে প্রকৃতির ছোয়া বেশী লেগে থাকে। এমনই প্রকৃতির ছোয়া লাগার মত শতরঞ্জি এর একটি কারখানা আছে রংপুরে। সেখানে মনে মত অনেক জিনিষ পত্র দেখতে পাওয়া যায় যে গুলো শীতের দিনে অনেক কাজে আসে। চলুন মাইগ্রেশন করা পাখিদের সম্পর্কে জেনে নিইঃ

লম্বা ঠোঁটের পাখিঃ

এরা পৃথিবীর মধ্যে সবচেয়ে বেশি দূর দূরত্ব পর্যন্ত মাইগ্রেশন করে থাকে এবং তা প্রায় ৭০০০ মাইল। এরা নিউজিল্যান্ডের একটি সামুদ্র সৈকত থেকে যাত্রা শুরু করে এবং তাদের বাসা (অ্যালাস্কায় ) তাদের বাসা বাঁধে সেখান পর্যন্ত তাদের গন্তব্য হয়। এই দীর্ঘ দূরত্ব অতিক্রম করতে তাদের শুধু মাত্র ৭ দিন সময় লাগে। এরা তাদের যাত্রাপথে গ্রীষ্মের সময় শুধু পীত সাগরে একটি বিরতি নেয়। অ্যালাস্কায় পৌছাইলে প্রজনন সম্পূর্ন হওয়ার পর পুনারায় এরা ইউরোপ এবং এশিয়ায় ফিরে আসে এবং গ্রীষ্মের জন্য অপেক্ষা করে। এই অতিথি পাখির ছবি টি ছোট হলেও অনেক বেশি দূরত্ব পর্যন্ত উড়ে বেড়ায় যা অন্য পাখি পারে না।

সুন্দর পাখি
ছবিঃ লম্বা ঠোটেঁর পাখি

হ্যারিয়ার পাখিঃ

হ্যারিয়ার নামের একটি বিমান আছে যেটি তার পারফর্মেন্সের কারনে বিশ্বব্যাপী পরিচিত এবং কিছু  যুদ্ধে উল্লেখযোগ্যা ভূমিকা রেখেছে। প্রকৃত অর্থে ঐ বিমানটির নাম এই পাখির উপর ভিত্তি করেই রাখা হয়েছে। বরং বিমানের বিভিন্ন টার্মের সাথে ফ্যালকন শব্দ জড়িত যা বাজপাখি কে নির্দেশ করে। এদের একমাত্র হোম হল উত্তর আমেরিকা এবং এরা আলাস্কা হতে কানাডার উত্তরাংশ এবং আমেরিকার দক্ষিন অংশ হয়ে আলাস্কায় পৌছে। শীতের সময় এরা ভেনুজুয়েলা এবং কলাম্বিয়া পর্যন্ত উড়ে বেড়ায়। ম্যাকাউ পাখি সম্পর্কে জানার জন্য ভিজিট করুন

অতিথি পাখির ছবি
ছবিঃ হ্যারিয়ার পাখি

সুন্দর পাখিঃ

এরা প্রকৃত অর্থে এক প্রকারের প্যাঁচা এবং এরা মেরু অঞ্চলের এদের দেখতে পাওয়া যায়। উত্তর মেরু এবং দক্ষিন মেরুতে এদের দেখা মিলে শীতের সময়। কিন্তু এরা কোথা থেকে আসে এবং কোথায় চলে যায় এর রহস্য আজ পর্যন্ত কেউ উদঘটন করতে পারেনি। এদের স্নো আউল বা মেরুর প্যাঁচা বলা হয়। এরা শীতের শুরুতে দক্ষিন মেরু থেকে যাত্রা করে উত্তর মেরুর কানাডা কিংবা মাঝে মাঝে টেক্সাস ও ফ্লোরিডার  দিকে যায়। এরা অতিথি পাখি এর চেয়ে যাযাবরের ন্যায় চলাচল করে থাকে। এবং যাওয়ার সময় এরা এদের ট্রেডিশনাল পদ্ধতিতে শিকারের ধরনের চিহ্ন ছেড়ে যায়।

অতিথি পাখির ছবি
ছবিঃ স্নো প্যাঁচা

পরিশেষে, মাইগ্রেশন করে আরও অনেক ধরনের অতিথি পাখি রয়েছে। কিন্তু একই আর্টিকেলে এত গুলা সুন্দর পাখি সম্পর্কে লিখা সম্ভব নয়। তাই এসব সুন্দর পাখিদের সম্পর্কে জানার জন্য এবং তাদের মাইগ্রেশন এর বৈশিষ্ট্য সহ বিভিন্ন তথ্য জানার জন্য আমাদের সাথেই থাকুন এবং আপনাদের মন্তব্য কমেন্ট বক্সের মাধ্যেমে আমাদের সাথে শেয়ার করুন। শীত যেহেতু চলেই এসেছে তাই শীতের পিঠাপুলি খাওয়া মিস করা  যাবে না এবং আপনারা এই সময় কি কি অতিথি পাখি দেখলেন তা কমেন্টের মাধ্যমে ছবি সহ জানান।

Facebook Comments

YappoBD

YappoBD-হলো poshupakhi.com এর একমাত্র স্বত্তাধীকারি। এই ওয়েবসাইটের সকল প্রকার কন্টেন্ট ইয়াপ্পোবিডি কর্তৃপক্ষ দ্বারা লিখিত, পরিমার্জিত এবং এটি ইয়াপ্পোবিডি এর অঙ্গসংস্থান।