৫ টি রাক্ষস প্রাণী যা তাদের নিজের বাচ্চা খায়
ছবিঃ রাক্ষস প্রাণী

৫ টি রাক্ষস প্রাণী যা তাদের নিজের বাচ্চা খায়

রাক্ষস প্রাণীর রাজত্ব প্রায়শই প্রকাশিত হয়। নিজের বাচ্চা খায় এমন প্রাণী অচেনা নয়। সাম্প্রতিক বছরগুলিতে পোলার ভাল্লুকদের এমন কার্যক্রম দেখা গেছে। তাদের বাচ্চাদের ভয়াবহভাবে খায় যা অনেক গনমাধ্যমে প্রাকাশিত হয়েছে, যে একটি মা পোলার ভাল্লুক তার দু’টি বাচ্চা মেরে খেয়েছিল। এই রকম হাজারো রাক্ষস প্রাণী তাদের নিজের বাচ্চা কে মেরে ফেলে এবং খায়। তার মধ্যে বাছাইকৃত ৫ টা প্রাণীর সম্পর্কে নিচে বর্ননা করা হলো।

১। স্যান্ড টাইগার শার্কঃ

স্যান্ড টাইগার হাঙ্গর, ধূসর নার্স হাঙ্গর হিসাবে পরিচিত। এরা একটি প্রতারক ও হিংস্র চেহারার অধিকারী। এগুলি হ’ল একটি রাক্ষস প্রাণী, নীতিহীন, আক্রমণাত্মক প্রজাতি এরা খুদার্ত হলে নিজের বাচ্চাদের খেয়ে ফেলে। পূর্ব প্রশান্ত মহাসাগর ব্যতীত এদের কে পৃথিবীর মহাসাগর জুড়ে উষ্ণ বা নাতিশীতোষ্ণ জলে পাওয়া যায়। এদের নাম উপকূলের আবাসগুলির দিকে তাদের প্রবণতা থেকেই আসে।

sand tiger sharks
ছবিঃ স্যান্ড টাইগার শার্ক

 

২। বিয়ার পোলারঃ

পোলার বিয়ারগুলি বরফের মধ্যে ঘুরে বেড়ায় এবং এই বরফের অঞ্চলের উপকূলীয় জলে সাঁতার কাটে। তারা খুব শক্তিশালী সাঁতারু এবং তাদের সামনের বড় পাঞ্জা আছে যা তারা প্যাডেল করতে ব্যবহার করে। আসলে, রাক্ষস প্রাণীর পুরুষ পোলার বিয়ার তাদের প্রজাতির বাচ্চাদের হত্যা করে। মহিলারা আক্রমণাত্মকভাবে তাদের বাচ্চাদের রক্ষা করে তবে তাদের পুরুষ সঙ্গীদের কাছ থেকে কোনও সহায়তা পান না।

পোলার বিয়ার
ছবিঃ পোলার বিয়ার

 

৩। হামাস্টার্সঃ

হ্যামস্টারগুলি ছোট ছোট ইঁদুর যা সাধারণত ঘরের পোষা প্রাণী হিসাবে রাখা হয়। সংক্ষিপ্ত লেজ, জেদী পা এবং ছোট কানের কারণে তারা অন্যান্য ইঁদুরগুলির থেকে পৃথক। হ্যামস্টারদের কালো, ধূসর, বাদামী, সাদা, হলুদ, লাল বা কয়েকটি রঙের মিশ্রণ সহ বিভিন্ন রঙ রয়েছে। এই রাক্ষস প্রাণী এদের বাচ্চাদের কে মেরে ফেলে এবং তা খায়।

রাক্ষস প্রাণী হ্যামস্টার
ছবিঃ হ্যামস্টার

 

৪। প্যারাসিটিস ওয়াস্পঃ

বিভিন্ন প্রজাতির প্যারাসিটিস ওয়াস্প বাগানের কীটগুলির পরজীবী হয়ে থাকে। সবচেয়ে সাধারণ হলো আইচনিউমেন ওয়েস্প, ব্র্যাকোনিড ওয়াস্প এবং চ্যালসিড ওয়াস্প। এই প্যারাসিটিস ওয়াস্পগুলির কাজটি সাধারণত পোকামাকড়ের চেয়ে বেশি দেখা যায়। প্যারাসিটিস ওয়াস্প মানুষের জন্য কোনও বিপদ সৃষ্টি করে না তবে তাদের প্রজাতির মধ্যে তারা হত্যা করে।

Parasitic wasp
ছবিঃ পারাসিটিস ওয়াস্প

 

৫। টাইগার সালাম্যান্ডারঃ

টাইগার সালাম্যান্ডার শীতের শেষের দিকে বা বসন্তের শুরুর দিকে প্রজনন পুকুরে চলে যায়। এদের মহিলারা ডিম দেয় বাচ্চা ফোটানোর জন্য তবে রাক্ষস প্রাণী পুরুষরা সেই ডিম গুলো খেয়ে ফেলে। বাঘের সালাম্যান্ডাররা ১৪ বছর বা তারও বেশি সময় বেঁচে থাকতে পারে।

টাইগার সালাম্যান্ডার
ছবিঃ টাইগার সালাম্যান্ডার

 

পৃথিবীর বিভিন্ন রাক্ষস প্রাণীর মধ্যে ৫ টি প্রাণী সম্পর্কে জানলেন। এই থেকেও আরো সুন্দর ও তথ্যমূলক পোষ্ট পড়তে poshupakhi.com এর পাশেই থাকুন।

Facebook Comments

YappoBD

YappoBD-হলো poshupakhi.com এর একমাত্র স্বত্তাধীকারি। এই ওয়েবসাইটের সকল প্রকার কন্টেন্ট ইয়াপ্পোবিডি কর্তৃপক্ষ দ্বারা লিখিত, পরিমার্জিত এবং এটি ইয়াপ্পোবিডি এর অঙ্গসংস্থান।