You are currently viewing মাছ সহ সামুদ্রিক প্রানী এর পানির নিচে ঠান্ডা লাগে না কেন
সমুদ্রের তলদেশের মাছ

মাছ সহ সামুদ্রিক প্রানী এর পানির নিচে ঠান্ডা লাগে না কেন

শীতেকালে ঠান্ডা এবং কুয়াশার কারনে জনজীবন জীর্ন শীর্ন হয়ে যায়। মানুষের জন্য চলাফেরা অনেক কষ্টকর হয় শীত বেড়ে গেল। শীতের কারনে আমাদের স্কিন অনেক শুষ্ক হয়ে যায় এবং ফেটেও যায়। এজন্য আমাদের ত্বকের যত্ন নিতে হবে। পাশাপাশি এ সময় ছোটবাচ্চাদের নিউমোনিয়া সহ অন্যান্য আরও অসুখ হয়ে থাকে। বাস্তবে ঠান্ডার মধ্যে কিছু ভাইরাস ব্যাক্টেরিয়ার সংক্রমনের কারনে এমন হয়ে থাকে। এজন্য আমাদের সতর্ক থাকতে হবে সবার ব্যাপারে। কথায় আছে প্রতিকারের চেয়ে প্রতিরোধ উত্তম।

শীতের সকাল
ছবিঃ শীতের সকালে খেজুরের রস খেতে যাওয়া

প্রত্যেক প্রানীর যে পরিবেশে বাস করে সেই পরিবেশে বেঁচে থাকার জন্য নির্দিষ্ট নিয়মে ছোট থেকেই সার্ভাইভ করা শিখে যায়। এতে করে প্রানিরা সেই পরিবেশের সাথে নিজেদের খাপ খাইয়ে নেয়। মানুষ সহ অন্য যে কোন প্রানীর পরিবেশের খাপ খাইয়ে নেওয়ার প্রক্রিয়াকে অভিযোজন বলে। উটকে মরুভূমির জাহাজ বলা হয়। আবার বাজপাখি কিংবা ঈগল আকাশে রাজত্ব করে বেড়ায়। তেমনি ভাবে সামুদ্রের নিচে প্রানী ও মাছ গুলোও একটি নির্দিষ্ট নিয়মের মধ্যে চলাফেরা করে থাকে। সামুদ্রিক প্রানী বলতে শুধু মাছ কেই  বুঝানো হয় না বরং সমুদ্রের নিচের সকল প্রানের অস্তিত্বকে সামুদ্রিক প্রানী বা সামুদ্রিক জীব বলা হয়। পানির নিচে মাছের কেন ঠান্ডা লাগে না এর উত্তর লেখার শেষের দিকে পাবেন। ততক্ষন পর্যন্ত সাথেই থাকুন।

সামুদ্রিক মাছঃ

মাছ আমিষ জাতীয় খাদ্য এবং শরীরের পুষ্টির দিক থেকে আমিষ অনেক গুরুতবপূর্ন উপাদান। এবং মাছ শরীরের বিভিন্ন ঘাটতি মেটাতে সাহায্য করে থাকে। আমাদের চারপাশে অনেক মিঠা পানির মাছ পাওয়া যায়। মিঠা পানির মাছ পুকুরে, বিলে, ডোবায়, নদীতে ইত্যাদিতে পাওয়া যায়।খেতেও এক রকমের সুস্বাদু প্রকৃতির। তবে আমাদের চারপাশের মিঠা পানির মাছের চেয়ে লোনা পানির মাছে অনেক বেশী পরিমান খাদ্যের উপাদান বিদ্যমান। সামুদ্রিক মাছে বিভিন্ন খনিজ পদার্থ বা উপাদান এবং বিভিন্ন আয়ন থাকে যা দেহ গঠনে সাহায্য করে থাকে। আয়নগুলো হাড় গঠনে বেশি ভুমিকা রাখে।

সামুদ্রিক মাছ
ছবিঃ সমুদ্রের তলদেশ

সামুদ্রিক এলাকায় বিনোদনঃ

এখানে সামুদ্রিক এলাকার আশেপাশে  অনেক পর্যাটন স্পট গড়ে উঠেছে। এবং কক্সবাজার, সেইন্টমার্টিন, মেরিন ড্রাইভ সড়ক এবং কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকত সহ আরও অনেক সামদ্রিক এলাকা আছে যেখানে মানুষ ঘুরার জন্য কিংবা ট্যুরের জন্য গিয়ে থাকে। বাংলাদেশের ট্যুরিস্ট অঞ্চল  গুলো অনেক আকর্ষনীয় এবং মনোমুগ্ধকর। যে কেউ দেখলে মন ভরে যাবে। এমন হওয়ার কারন এখানে আবহওয়া জলবায়ু, এবং ষড় ঋতু। ঋতুভেদে প্রকৃতির অপরূপ সাঁজে সজ্জিত হয় আমাদের এই সুন্দর বাংলাদেশ।

সেইন্টমার্টিন
ছবিঃ পর্যাটন স্পট

সামুদ্রিক প্রানীঃ

উপরে সামুদ্রিক মাছ নিয়ে লেখার পর সামুদ্রিক প্রানী অনেকের কাছে একই মনে হলেও মোটেও এক নয়। কারন কিছু  কিছু সামুদ্রিক মাছ খাওয়া যায়। কিন্তু অধিকাংশ সামুদ্রিক মাছ খাওয়া যায় না। কিন্তু তারা দেখতে সুন্দর। এই সুন্দর সামুদ্রিক মাছ সমুদ্রের সৌন্দর্য বহুগুনে বাড়িয়ে থাকে। এজন্য বলা হয় যে সমুদ্রের নিচে জীবের বৈচিত্র্যের শেষ নেই। কিছু কিছু সামুদ্রিক প্রানী আছে যা দেখতে সুন্দর কিন্তু বিষাক্ত প্রকৃতির। এদের দেখে ধরতে মন চাইলেও এরা যে বিষাক্ত পদার্থ নির্গমন করে তা মানুষের নিমিষেই মৃত্যুর জন্য যথেষ্ট। মাছ সহ সামুদ্রিক প্রানী দেখতে যেমন রোমাঞ্চকর তেমনি মন জুড়ানো।

সামুদ্রিক প্রানী
ছবিঃ সাগরের তলদেশের প্রানী

মাছ সহ সামুদ্রিক প্রানীঃ

সামুদ্রের তল দেশ এবং মাছ যদি আলাদা ভাবে চিন্তা করা হয় তাহলে সমুদ্রের নিচের জীব বৈচিত্র এবং বিভিন্ন উদ্ভিদ আছে তা নিয়েও মানুষের অনেক কিছু জানার  আছে। এসব উদ্ভিদেরও অজানা রহস্য আছে যার কিছু কিছু বৈজ্ঞানিক ভাবে ব্যাখ্যা পাওয়া গিয়েছে। পানির নিচে ছোট এবং বড় মাছ পাশাপাশি চলে। কেউ একা চলে আবার কেউ দল বেধে চলে। প্রানীদের এমন এক সাথে ছন্দ মিলিয়ে চলার বিভিন্ন রকম ভিডিও ইউটিউব এবং ডিসকভারী, ন্যাশনাল জিও গ্রাফিতে দেখা যায়। ছোট থেকে শুরু করে বাচ্চারা পর্যন্ত এসব ভিডিও দেখে থাকে।

লোনা পানির মাছ
ছবিঃ মাছের দাঁত

পরিশেষে, এমন অনেক কিউরিয়াস মুলক প্রশ্ন আছে যা আমরা সচরাচরই করে থাকি। কিন্তু এদের সঠিক ব্যাখ্যা জানি না। প্রানীদের নিয়ে এমন অদ্ভুত প্রশ্নের সঠিক ব্যাখ্যা দেওয়া আমাদের এক মাত্র উদ্দেশ্য। পশুপাখি সম্পর্কে বর্তমানের নতুন প্রজন্ম খুবই কম জানছে।কেননা তারা টেকনোলজি নির্ভর হয়ে আউটডোর খেলাধুলা থেকে নিজেদের বিরত রাখছে। এতে তাদের বিকাশ বিঘ্নিত হচ্ছে। লেখাটি পড়ে আপনার কেমন লাগল এবং আপনাদের কোন প্রশ্ন থাকলে তা কমেন্টের আমাদের সাথে শেয়ার করতে পারেন। লেখাটি অবশ্যই আপনার সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করবেন। এতে করে আপনার বন্ধুরাও এই সম্পর্কে জানতে পারবে।

 

Facebook Comments

YappoBD

YappoBD-হলো poshupakhi.com এর একমাত্র স্বত্তাধীকারি। এই ওয়েবসাইটের সকল প্রকার কন্টেন্ট ইয়াপ্পোবিডি কর্তৃপক্ষ দ্বারা লিখিত, পরিমার্জিত এবং এটি ইয়াপ্পোবিডি এর অঙ্গসংস্থান।