বিলাসবহুল শহর দুবাই, এ যেসব বন্য প্রানী বাস করে

বিলাসবহুল শহর দুবাই, এ যেসব বন্য প্রানী বাস করে

বন্য প্রানী কম-বেশি সকল দেশেই রয়েছে।মধ্যপ্রাচ্যের  সংযুক্ত আরব আমিরাত উল্লেখযোগ্য দেশগুলোর মধ্যে অন্যতম।এর রাজধানী আবুধাবি।দুবাই ঐ দেশের  বাণিজ্যিক শহর গুলোর মধ্যে অন্যতম।বাংলাদেশে যেমন  চট্টগ্রাম বাণিজ্যিক শহর হিসেবে বেশি পরিচিত। তেমনি ভাবে সংযুক্ত আরব আমিরাতের বাণিজ্যিক শহর হল দুবাই।মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোকে বিশ্বের মধ্যে সবচেয়ে ধনী রাষ্ট্র হিসেবে বিবেচনা করা হয়।আমাদের দেশের অর্থনীতি কৃষি সহ অন্যান্য শিল্পের উপর নির্ভরশীল তেমনি ঐ দেশের অর্থনীতি তেল এবংস্বর্নের উপর নির্ভরশীল।

14 beautiful garden pluto dubai miracle garden 1

তবে দুবাই অনেক আধুনিক শহর হলেও  মরুভূমির পাশে অবস্থিত।এই মরুভূমিতে বিভিন্ন ধরনের প্রাণী দেখতে পাওয়া যায়।আজকে আমরা ঐসব প্রাণীদের সম্পর্কে জানব।তবে একটি কথা না বললেই নয়, এদেশের ধনীরা  শখের বশে বিভিন্ন ধরনের হিংস্র জীবজন্তুদের  পোষা প্রাণী হিসেবে নিজেদের বাড়িতে রাখে।এই তালিকায় বাঘ সিংহ চিতাবাঘ অন্যান্য হিংস্র জীব জন্তুও  রয়েছে।চলুন ঐ দেশে যে মরুভূমিতে প্রানির অস্তিত্ব রয়েছে তা সম্পর্কে জেনে নিই।

অ্যারাবিয়ান মৃগঃ

সংযুক্ত আরব আমিরাতের জাতীয় প্রাণী হিসেবে এদের বেশি পরিচিতি।এদের সম্পূর্ন ত্বক সাদা রংয়ের এবং এদের শিং অত্যন্ত সূচালো খাড়া দুটি শিং রয়েছে এবং এদের চারটি পা কিছুটা বাদামী বর্ণের হয় হয়ে থাকে।এসব কিছু সংমিশ্রন প্রাণীটিকে খুব সুন্দরভাবে আকর্ষণীয় করে তোলে।এরা তৃণভোজী এজন্য ছোট ছোট ধরনের গাছ ফল মুল পাতা সব বিভিন্ন কিছু খেয়ে থাকে।শীতকালে দেশে ভ্রমণ করলে এসব প্রাণীদের  দর্শন খুব স্বাচ্ছন্দের সাথে করা যায়।

Arabian Oryx
ছবিঃ অ্যারাবিয়ান মৃগ

অ্যারাবিয়ান স্যান্ড গেজেলঃ

এদের  দেখতে আমাদের দেশের হরিণের মত।কিন্তু এদের শিং এতটা লম্বা নয় বরং খুব ছোট আকারের কিন্তু শিং এর মাথা দুটি বাঁকানো।সংখ্যার দিক থেকে এরা অনেক বেশি।অ্যারাবিয়ান মরুভূমির এবং সিরিয়া মরুভূমিতে এবং উল্লেখযোগ্য ভাবে বেশি পরিমাণ দেখা যায়।এছাড়াও তুর্কি এবং ওমানের কিছু অঞ্চলে দেখতে পাওয়া যায়।

Arabian Sand Gazelle
ছবিঃ আরাবিয়ান গেজেল

অ্যারাবিয়ান নেকড়েঃ

আমাদের দেশের নেকড়ের মতো ওই দেশেও নেকড়ে রয়েছে।কিন্তু আবহাওয়া স্থান জলবায়ুর কারণে আমাদের দেশের নেকড়ে গুলোকে যদি ওই দেশের মরুভূমিতে রাখা হয় তাহলে তারা ওই পরিবেশে টিকতে পারবে না।সুতরাং আমাদের দেশের নেকড়ে এবং অ্যারাবিয়ান নেকড়ে এর মধ্যে সবচেয়ে বড় পার্থক্য হলো এরা যার যার স্ব-স্থানে  ভালোভাবে বসবাস করতে পারে। অর্থাৎ বন্য প্রানী নিজ দেশের বন্য পরিবেশে থাকতে পছন্দ করে।এছাড়া অন্যান্য বৈশিষ্ট্য দিক থেকে অনেকটাই মিল রয়েছে।

Arabian Wolf
ছবিঃ বন্য প্রানী নেকড়ে

অ্যারাবিয়ান চিতাঃ

চিতাবাঘ সম্পর্কে আমরা জানিনা এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া মুশকিল।কেননা  বাঘ বলতে, রয়েল বেঙ্গল টাইগার এবং চিতাবাঘ সর্বপ্রথম কল্পনা করি।চিতাবাঘ জলাশয় এর নিকটে এর নিজস্ব কলোনি গড়ে তুলে এবং পরিবার নিয়ে বসবাস করে।নিশাচর প্রাণী হয় রাতের বেলা শিকারে বের হয়।যদিও জঙ্গলে দিনের বেলাও শিকার করতে দেখা যায় কিন্তু মরুভূমিতে গরম হওয়ার কারণে এরা রাতের বেলা শিকার করে থাকে।সংযুক্ত আরব আমিরাতের ধনকুবেরদের বাড়িতে এদের দেখতে পাওয়া যায়।শখের বশে অনেকে পোষা প্রাণী হিসেবে পালন করে। চিতা সম্পর্কে আরও জানতে ক্লিক করুন

বন্য প্রানী
ছবিঃ অ্যারাবিয়ান বন্য প্রানী চিতা

বন্য প্রানীঃ

সরীসৃপ জাতীয় প্রাণী দের মধ্যে অন্যতম।আমাদের বাসা বাড়িতেও টিকটিকি ঘরের দেওয়ালে ঘুরে বেড়াতে দেখতে পাই।কিন্তু বন্য টিকটিকি গুলো আকার এবং শক্তির দিক থেকে এদের চেয়ে বহু গুণ শক্তিশালী এবং বড়।এদের দেখতে অনেকটা গুই সাপের মত কিন্তু আকারে  দিক থেকে  একটু ছোট।ঐ  দেশের মরুভূমিতে এরা দিনের বেলা খাবারের খোঁজে বের হয় আবার মাঝে মাঝে রাতেও বের হয়।আত্মরক্ষার জন্য এরা এদের লেজ ব্যবহার করে।এদের লেজে খাজ কাটার মত তীক্ষ্ণ অংশ রয়েছে।

Arabian Wolf

পরিশেষে মরুভূমি বন্য প্রানীদের সম্পর্কে অনেক কিছু জানলাম।এখানে মজার বিষয় এটি যে, অন্যান্য বন-জঙ্গলে প্রাণীরা যেমন দিনে শিকার করে একইভাবে রাতেও শিকার করে।কিন্তু দুবাইয়ের সহ অন্যান্য মরুভূমিতে প্রাণীগুলো রাতে শিকারের খোঁজে বের হয়।এভাবে তারা তাদের খাদ্য সংগ্রহ করে। লেখাটি পড়ে আপনাদের কেমন লাগলো তা জানাতে কমেন্ট বক্সে মাধ্যমে কমেন্ট করুন এবং বেশি বেশি শেয়ার করুন।

Facebook Comments

YappoBD

YappoBD-হলো poshupakhi.com এর একমাত্র স্বত্তাধীকারি। এই ওয়েবসাইটের সকল প্রকার কন্টেন্ট ইয়াপ্পোবিডি কর্তৃপক্ষ দ্বারা লিখিত, পরিমার্জিত এবং এটি ইয়াপ্পোবিডি এর অঙ্গসংস্থান।